ইতিহাসের সবচেয়ে দুর্ভাগা ব্যক্তি!

আপনি যদি নিজেকে দুর্ভাগা ব্যক্তি বলে মনে করেন তাহলে এই ব্যক্তিকে কী বলবেন? ঘটনাটি ঘটেছে আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতে ধ্বংসপ্রাপ্ত ঐতিহাসিক পম্পেই নগরীর কাছেই।

আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতে যখন পম্পেই নগরী ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়ে যায় তখন সে ব্যক্তিও পম্পেই থেকে পালিয়ে যান। এ সময় তিনি আগ্নেয় লাভা থেকে জীবন রক্ষা করতে সক্ষম হলেও ভাগ্যের দোষে তিনি একটি বিশাল পাথরে চাপা পড়ে নিহত হন। আর এ করুণ মৃত্যুর কারণে তাকে ইতিহাসের সবচেয়ে দুর্ভাগা ব্যক্তি বলে অভিহিত করছেন অনেকেই।

প্রায় দুই হাজার বছর আগে পম্পেই ছিল রোমান সাম্রাজ্যের একটি সমৃদ্ধ নগর। মাউন্ট ভিসুভিয়াসের অগ্ন্যুৎপাতে হঠাৎ করেই নগরটি আগ্নেয়গিরির লাভায় ঢেকে যায়। নিহত হয় শহরের সব মানুষ। এ সময় কিছু মানুষ পালাতেও সক্ষম হয়।

সম্প্রতি গবেষকরা পম্পেও নগরীর বেশ কিছু দেহাবশেষ বা কংকাল উদ্ধার করেছেন, যার মধ্যে এই ৩০ বছর বয়সী ব্যক্তির কংকালটিও রয়েছে। এ কংকালটি যার, তিনি আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাত থেকে বাঁচলেও পাথর চাপায় নিহত হন বলে মনে করা হচ্ছে।
————————————————
কবিরাজঃ তপন দেব’এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে নারী ও পুরুষের যাবতীয় গোপন রোগ সহ যে কোন রোগের চিকিৎসা দেওয়া হয়। এবং দেশেও বিদেশে ঔষধ পাঠানো হয়।যোগাযোগ”””””””ঢাকা””খিলগাও””মোবাইল””০১৮২১৮৭০১৭০”””””
””””””
হাত নয়, পা দিয়েই চলছে নৌকা! (ভিডিও)

ভিয়েতনামে কোনো দর্শনীয় স্থানে নৌকায় ভ্রমণ করতে গেলে অনেকেই অবাক হন। কারণ নৌকার বৈঠা চালানোর কাজটি তারা পা দিয়েই করে। যদিও বিশ্বের সর্বত্র সাধারণত হাত দিয়েই এ কাজ করা হয়।

বিষয়টি অবাক করলেও ভিয়েতনামের নিম বিন এলাকায় ঝাঁকে ঝাঁকে নৌকার মাঝি পা দিয়েই এ কাজটি করছেন। এ কাজে সেখানকার নারী-পুরুষ নির্বিশেষে মাঝিরা নিপুণ দক্ষতা অর্জন করেছেন।

নিম বিন এলাকাটি অত্যন্ত আকর্ষণীয়। বেশ দারুণ সুন্দর লেক ও তিনটি গুহা আছে সেখানে। সেখানকার স্থানীয় গাইডরা পর্যটকদের সরাসরি নৌকা চালিয়ে সেই গুহার ভেতর নিয়ে যায়।

কিন্তু অতীতে এ কাজটি মাঝিরা হাত দিয়েই করত বলে জানা যায়। তবে পর্যটক সমাগম বৃদ্ধি পাওয়ায় নানা কাজে হাত খালি রাখার প্রয়োজন ছিল। আর সে কারণেই তারা পা দিয়ে নৌকা চালানো শুরু করে বলে জানায়।

পা দিয়ে নৌকা চালানোয় মাঝিদের বেশ সুবিধা হয়েছে। তারা হাত খালি রাখায় তা দিয়ে ছাতা ধরতে পারে কিংবা অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাজের জন্যও হাত ব্যবহার করতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*