ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করল বাংলাদেশ

ঢাকা টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ইনিংস ও ১৮৪ রানের ব্যবধানে হারিয়ে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজ ২-০ তে জিতে হোয়াইটওয়াশ করল বাংলাদেশ। এর আগে চট্টগ্রামে প্রথম টেস্টে ৬৪ রানে জয় পেয়েছিল টাইগাররা। এই ম্যাচে প্রথমবারের মতো কোন দলকে টেস্টে ইনিংস পরাজয়ের লজ্জা দিল বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসে মিরাজ ৭ উইকেট নেওয়ার পর দ্বিতীয় ইনিংসে নেন উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অলআউট হয় ২১৩ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসে তাইজুল ইসলাম নেন ৩ উইকেট।

এর আগে প্রথম ইনিংসে ১১১ রানে অলআউট হয়ে ফলোঅনে পড়ে তাঁরা। মেহেদী হাসান মিরাজ ৭ ও সাকিব আল হাসান ৩ উইকেট নেন। গতকাল দ্বিতীয় দিন শেষে ৪৩৩ রান পিছিয়ে ছিল সফরকারীরা। দিনের শেষ সেশনে ব্যাট করতে নেমে ২৯ রানেই ৫ উইকেট হারায় তাঁরা। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ সংগ্রহ করেছে ৫০৮ রান। বাংলাদেশের পক্ষে ১৩৬ রান করেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেলে ওয়ারিকানের বলে বোল্ড হন তিনি। এছাড়াও সাকিব আল হাসান ৮০, অভিষিক্ত সাদমান ইসালাম ৭৬ ও লিটন দাস করেন ৫৪ রান। ক্যারিবীয়দের পক্ষে পেসার কেমার রোচ ২, ওয়ারিকান ২ ও ব্রেথওইয়েট ২ ও বিশু ২ উইকেট নেন।

নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসের প্রথম ওভারের চতুর্থ বলে উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ফলোঅনে পড়ে ব্যাট করতে নেমে সাকিব আল হাসানের প্রথম ওভারেই ফেরেন অধিনায়ক ব্রেথওয়েট। কাইরন পাওয়েলকে স্ট্যাম্পিংয়ে শিকার করে দ্বিতীয় ইনিংসে নিজের প্রথম উইকেট নেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ১৪ রানেই দুই ওপেনারকে হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

দ্বিতীয় ইনিংসে বল করতে এসে নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট নেন তাইজুল ইসলাম। সুনিল আমব্রিসকে লেগ বিফরের ফাঁদে ফেলেন তিনি। ২০ বল মোকাবেলায় ৪ রান করেন আমব্রিস। রস্টন চেজকে মুমিনুলের হাতে ক্যাচ দিয়ে টানা দ্বিতীয় ওভারে দ্বিতীয় উইকেট নেন তাইজুল ইসলাম। ৯ বল মোকাবেলায় ৩ রান করেন চেজ। দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে ২৯ রানে ৪ উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

তৃতীয় দিনের প্রথম সেশনে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পুরোপুরি ব্যাকফুটে ঠেলে দেয় বাংলাদেশ। প্রথম সেশনে ৮২ রান করে ক্যারিবীয়রা হারায় তাঁদের ৯ উইকেট। প্রথম ইনিংসের পাঁচটি ও দ্বিতীয় ইনিংসে নেমেও চার উইকেট হারায় তাঁরা। দ্বিতীয় ইনিংসে ৪ উইকেট হারিয়ে ৪৬ রান করে লাঞ্চ বিরতিতে যায়।

লাঞ্চের পর মিরাজের বলে সাকিব আল হাসানকে ক্যাচ দিয়ে আউট হন শাই হোপ। ৭৫ বলে ২৫ রান করেন তিনি। দ্বিতীয় ইনিংসে মিরাজের দ্বিতীয় শিকার হোপ। পঞ্চম উইকেট জুটিতে ৫৬ রানের জুটি গড়েন শিমরান হেটমায়ার ও শাই হোপ।

শেন ডওরিচকে স্লিপে সৌম্য সরকারের হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে পাঠিয়ে ঢাকা টেস্টে নিজের প্রথম উইকেট নেন নাঈম হাসান। দেবেন্দ্র বিশু কে স্লিপে সৌম্য সরকারের হাতে ক্যাচ বানিয়ে ম্যাচে ১০ উইকেট নেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের সফল ব্যাটসম্যান শিমরান হেটমায়ারকে ৯৩ রানে আউট করেন মিরাজ। ৯২ বলে ৯ টি ছয় মেরে ৯৩ রানের ইনিংস খেলেন হেটমায়ার। দ্বিতীয় ইনিংসেও ৫ উইকেট শিকার করেন মিরাজ। নিজের বলে নিজেই ক্যাচ নিয়ে ফেরান ওয়ারিকানকে।

স্কোর: বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস- ৫০৮/১০, ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ইনিংস- ১১১/১০, ওয়েস্ট ইন্ডিজ দ্বিতীয় ইনিংস- ২১৩/১০, ফল- বাংলাদেশ ইনিংস ও ১৮৪ রানে জয়ী সিরিজ- বাংলাদেশ ২-০ তে জয়ী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*