তোমাদের বুলেট কখনই কালিমা থেকে মুসলিমদের দুরে সরাতে পারবে না - Bd Online News 24
Home » ধর্ম » তোমাদের বুলেট কখনই কালিমা থেকে মুসলিমদের দুরে সরাতে পারবে না

তোমাদের বুলেট কখনই কালিমা থেকে মুসলিমদের দুরে সরাতে পারবে না

নিউজিল্যান্ডের সেন্ট্রাল ক্রাইস্টচার্চের ডিনস ইভে মসজিদ আল নুরে অজ্ঞাত বন্দুকধারীর হামলা থেকে অল্পের জন্য বেঁচে গেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সদস্যরা। এমন সন্ত্রাসী হামলায় নিউজিল্যান্ডকে নিন্দা জানিয়েছে ক্রিকেট বিশ্ব। সেই সাথে স্বস্তি প্রকাশ করেছে টাইগাররা নিরাপদে থাকায়। এদিকে নিউজিল্যান্ডে সন্ত্রাসী হামলায় আহত এক ব্যক্তির ছবি দিয়ে ফেসবুকে রুবেল লিখেন’ ছবিতে জঙ্গী হামলার শিকার এক মুসলিম আঙ্গুল দিয়ে কালিমার সাক্ষ্য দিচ্ছেন। তোমাদের বুলেট কখনোই এই কালিমা থেকে আমাদের মুসলিমদের দূরে সরাতে পারবে না। মুখে উচ্চারণ করতে না পারলেও আঙুল উঁচিয়ে সাক্ষ্য দিয়ে যাবো।’

ছবিটিতে দেখা যায়, আহত এক ব্যক্তিকে স্ট্রেচারে করে পুলিশ যখন নিয়ে যাচ্ছিল তখন সেই ব্যক্তি শাহাদত আঙুল দিয়ে এক আল্লাহর সাক্ষ্য প্রদান করছেন। হামলাকারীর রাইফেলে যা লেখা রয়েছে কথা ছিল, সংবাদ সম্মেলনটা শেষ করে জুমআ নামাজ আদায় করতে ঠিক দেড়টা নাগাদ পার্শ্ববর্তী আল নুর মসজিদে যাবেন বাংলাদেশী ক্রিকেটাররা। কিন্তু সংবাদ সম্মেলনটা দীর্ঘায়িত হয়েছিল বেলা ১টা ৪০ পর্যন্ত। হয়তো সেটাই রক্ষা করেছে বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দলকে।

২০১৭ সালের ৭ এপ্রিল সুইডেনের স্টকহোম শহরে জঙ্গিদের ট্রাক চাপায় হতাহতের ঘটনার প্রতিশোধ নিতেই ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে ভয়াবহ হামলা বলে উল্লেখ করেছে কয়েকটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম। এই ধারণার পেছনে হামলাকারীর রাইফেল লেখা কিছু শব্দ যুক্তি হিসেবে তুলে ধরেছে নিউজ ডট কম এইউ, টাইমস নাও এর মতো মিডিয়াগুলো। ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে ভয়াবহ হামলা থেকে ভাগ্যজোরে বেঁচে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

এই হামলা চালিয়েছে নিজেকে ব্রেন্টন টেরেন্ট বলে পরিচয় দেয়া এই হামলাকারী ২৮ বছর বয়সী এক অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক। অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসের গ্রাফটন শহরের অধিবাসী সে। হামলার আগে সে টুইটারে ‘দ্য গ্রেট রিপ্লেসমেন্ট’ শিরোনামে ৮৭ পৃষ্ঠার দীর্ঘ একটি মেনোফেস্টো প্রকাশ করে। নিজেকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থক বলেও দাবি করা ব্রেন্টন টেরেন্ট কেন এই হামলা চালিয়েছেন তা নিয়ে চলছে জল্পনা।

অস্ট্রেলিয়ার কিছু গণমাধ্যম বলছে, ২০১৭ সালের ৭ এপ্রিল সুইডেনের স্টকহোম শহরে জঙ্গিদের ট্রাক চাপায় হতাহতের ঘটনার প্রতিশোধ নিতেই নাকি টেরেন্ট এই ঘটনা ঘটিয়েছেন। টেরেন্টে যে রাইফেল নিয়ে এই হামলা চালান, সেটার গায়ে কিছু শব্দ লেখা ছিল। হামলার ভিডিওতে যে শব্দগুলো স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে সেগুলো হলো, ‘ To take revenge for Ebba Akerlund’। এবা আকারলাউন্ড নামের ১২ বছরের সুইডিশ মেয়েটি ছিল শ্রবণ প্রতিবন্ধী ।

স্কুল থেকে ফেরার পথে সে স্টকহোমের সেই ট্রাকচাপায় সে প্রাণ হারায়। এবার মৃত্যুর প্রতিশোধ নিতেই ক্রাইস্টচার্চে হামলা করে টেরেন্টে। তার রাইফেলের লেখা এবং তার টুইটার অ্যাকাউন্টের বক্তব্য থেকে এই ধারণা করছে গণমাধ্যম। প্রতিশোধাত্মক এই ঘটনা ইতিমধ্যেই শান্তিকামী মানুষের মনে ভিন্ন এক শঙ্কা জাগিয়ে দিয়েছে। এভাবে যদি প্রতিটি ঘটনার প্রতিশোধ নেওয়া শুরু হয়; তবে সারাব পৃথিবী একসময় নরকে পরিণত হবে। ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদে নিহত ৪৯জনের মধ্যেও অন্তত দুজন শিশু বলে জানা গেছে। নৃশংস এই হামলার পর ধর্মের নামে মানুষ হত্যা বন্ধের দাবি তুলেছেন শান্তিকামী মানুষ।

Leave a Reply